রাজৈরে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যা - MB TV

রাজৈরে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যা

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ মে ১২, ২০২১ | ৬:২১ 75 ভিউ
ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ মে ১২, ২০২১ | ৬:২১ 75 ভিউ
Link Copied!

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধিঃ

উপজেলায় এক সন্তানের জননী বিথী বেগমের (২২) ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের দাবি হত্যা করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার টেকেরহাট পূর্ব সরমঙ্গল গ্রামের বাঘা বাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিথী একই গ্রামের ফুলচান বাঘার (২৩) দ্বিতীয় স্ত্রী। পুলিশ মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসি জানায়, উপজেলার পূর্ব সরমঙ্গল গ্রামের বাবুল কাজীর মেয়ে বিথী গত চার মাস আগে স্বামী রাসেল শেখ ও তার ৪ বছরের ছেলে রিয়ানকে রেখে পালিয়ে গিয়ে একই গ্রামের রফেজ বাঘার ছোট ছেলে ফুলচানের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এর কিছুদিন পরে জানতে পারে ফুলচান নিয়মিত মাদক সেবন করে। পরে এক পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। এরই জের ধরে গলায় রশি দিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলে ওই গৃহবধূ আতœহত্যা করে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে রাতেই মরদেহটি উদ্ধার করে।

বিজ্ঞাপন

তারা আরো জানায়, এরআগে ফুলচান তার মৃত মেঝো ভাইয়ের স্ত্রীকে বিয়ে করেছিলো। কিন্তু মাদকাসক্ত হওয়ায় তাকে স্বামী তালাক দিয়ে চলে গেছে। পরে ফুলচানকে মাদকমুক্ত করার জন্য মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করেছিল পরিবারের লোকজন।
নিহতের মা বানেচা বেগম বলেন, মাদক সেবন ও আমার নাতি রিয়ানের সাথে দেখা করতে বাঁধা দেয়াকে কেন্দ্র করে ওরা আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে। আমি এর বিচার চাই।

নিহতের শশুর রফেজ বাঘা বলেন, মঙ্গলবার রাতে আমার ছেলে তার এক বন্ধুর সাথে দেখা করতে বাসস্ট্যান্ডে যায়। পরে আমার ছেলের বউ বিথী আমার ছেলেকে বার বার ফোন দিয়ে না পেয়ে রাগে ক্ষোভে আতœহত্যা করেছে।
ওসি মো. শেখ সাদিক বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর রহস্য জানা যাবে।

বিজ্ঞাপন

বিষয়ঃ