হঠাৎ লাগছে আগুন, আতঙ্কে গ্রামবাসী !

হঠাৎ লাগছে আগুন, আতঙ্কে গ্রামবাসী !

মোঃওয়াদুদ হোসেন, ঠাকুরগাঁও : 
কেউ জানেন না কি করে ধরছে আগুন। একের পর এক বাসায় যেন লেগেই চলছে আগুন। কখনো রাতে,কখনো সকালে,কিনবা কখনো বিকালে। হঠাৎ অলৌকিক এমনি আগুনে যেন আতঙ্গে রয়েছে একটি গ্রামের মানুষেরা। তাৎক্ষণিক আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রতিটি বড়িতে হাটি,পাতিল সহ পানি সংরক্ষনের পাশাপাশি স্থাপন করা হয়েছে বৈদ্যুতিক পাম্প।
বলছিলাম ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের ছোট সিঙ্গয়া মুন্সিপাড়া এলাকার কথা।
রোববার(২৫ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার সেই গ্রামে গেলে এমনি বিষয়টি চোখে পড়ে।
আগুনের আতঙ্কে ঘরের বাহিরে বসেই রান্না করছেন গ্রামবাসীরা। সেই সাথে অনেকে তাদের সন্তানদের পঠিয়ে দিয়েছেন স্বজনদের বাড়িতে। হঠাৎ করেই লেগে যাওয়া আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে না পাড়ায় ঘরের ভিতরে থাকা আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে। চিন্তিত গ্রামবাসী…
সারেজমিনে গিয়ে যানা যায়,শবে বরাতের রাতে প্রথম আগুনের সূত্রপাত হয় সেই এলাকায়। পরে সেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হলেও পরের দিন আবারো গ্রামের তিনটি বাসায় অলৌকিক ভাবে লেগে যায় আগুন। এরপর থেকেই ওই গ্রামে প্রতিদিন একের পর এক আগুন লেগেই চলছে। কি করে, কিভাবে ধরছে এই আগুন যানেন না কেউ। এলাকায় এমনি ঘটনায় যেন আতঙ্কে দিন যাপন করছেন সেই গ্রামের ৮৮টি পরিবার। সঠিক সুরহা চায় প্রশাসনের কাছে।
গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তোভোগী মেরিনা আখতার  বলেন,প্রায় একমাস ধরেই বাসার যে কোন জায়গায় হ

ঠাৎ আগুন লেগে যাচ্ছে। প্রতিদিন ৯ থেকে ১০ বারের মতো আগুন লেগেই চলছে। কি করে আগুন ধরেছে বলা যাচ্ছে। কখনো পুড়ছে কাপড়,কখনো বা পুড়ছে ঘরে

র আসবাবপত্র। এই নিয়ে অনেক আতঙ্কে আছি আমরা।

আরেক ভুক্তোভোগী মকছেদুল ইসলাম   বলেন,প্রতিদিন বাসায় আগুন লেগে যাচ্ছে। এর ফলে আমাদের ঘরে থাকা যেন হুমকির মুখে হয়ে দাঁড়িয়েছে। না যানি কখন কারো বড় ক্ষতি হয়ে যায়। আগুনের ভয়ে পরিবারের স্বজনদের বাসায় একা রেখে যাইতেও ভয় লাগছে। কি করে আগুন লাগছে এটার যদি সঠিক সুরহা করা হয় তাহলে আমাদের জন্য ভালো হবে।
স্থানীয় বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন,জুবায়ের,রানা সহ বেশ কয়েকজন বলেন,এই গ্রামের কয়েকজনের বাসায় প্রতিদিন যেভাবে আগুন ধরছে এটা তো চিন্তার বিষয়। এই আগুনের ফলে সমস্ত এলাকাবাসী আজ আতঙ্কে। এটি অলৌকিক না কারো শত্রæতা আছে সেটি প্রশাসন যদি ক্ষতিয়ে দেখে তাহলে গ্রামবাসী একটু শান্তিতে থাকতে পাড়বে।
এদিকে বিষয়টি অলৌকিক না অন্য কিছু তা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রশাসক। সেই সাথে ক্ষতিগ্রস্থদের ইতিমধ্যে সাহায্যও করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার যোবায়ের হোসেন  বলেন,ছোট সিঙ্গয়া মুন্সিপাড়া এলাকার অলৌকিক ভাবে আগুন লেগে যাচ্ছে এমনি একটি বিষয়ে আমরা অবগত হওয়ার পরেই ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করেছি। সেই সাথে আগুনে ক্ষতিগ্রস্থদের সরকারের পক্ষ থেকে প্রাথমিক সাহয্য করা হয়েছে। এখানে অলৌকিক ভবে আগুন লাগছে নাকি অন্য কোন বিষয় রয়েছে কিনা সেটি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আসলাম জুয়েল  বলেন,ঘটনাটি শুনার পরে আমি সেখানে গিয়েছি। সেখানে এই অলৌকিক আগুনের কারনে বেশ কিছু মানুষের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে এই বিষয় নিয়ে উচ্চ পর্যায় থেকে একটি তদন্ত টিম পাঠানো হয় তাহলে হয়তো বিষয়টি আরো পরিস্কার হওয়া যাবে। কি কারনে লাগছে আগুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.